এপ্রিল 16, 2014

বুয়েটে তার্কণু সপ্তাহ শেষ, এখন নোলান সপ্তাহ চলছে…

বুয়েটে তার্কণু সপ্তাহ শেষ, এখন নোলান সপ্তাহ চলছে...

পিএল শুরুতে সাধারণ ছাত্রের প্রতিক্রিয়া

এপ্রিল 11, 2014

বুয়েটের বাসে ওয়াইফাই এবং জায়ান্ট স্ক্রীণের টেলিভিশন সংযোজন

আসন্ন পিএল এবং তদ-পরবর্তী বিশ্বকাপে বুয়েটিয়ানরা যাতে হালনাগাদ থাকতে পারে, সেজন্য বুয়েট কতৃপক্ষ বাসে ওয়াইফাই এবং জায়ান্ট স্ক্রীণ সংযোজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কোনো রকম টেকাটুকা ছাড়া এ সুবিধা পেতে ছাত্রছাত্রীদেরকে সোয়া ছয় ঘন্টা সুনালী বেংকের লাইনে দাড়িতে নিজের পছন্দের দল, নায়িকা এবং অন্যান্য আগ্রহের বিষয়াবলী জমা দিতে আহবান করা হয়েছে।

আমাদের বুয়েটের আলুবেদক জানান, বুয়েট ক্যাম্পাসে ওয়াইফাই এবং ক্যাফেতে জায়ান্ট স্ক্রীণ থাকা সত্বেও উহা শুধুমাত্র বড়দের সিনেমা নামানো এবং কোলকাতার রেম্বো মিঠুনের মারামারি দেখার কাজে সর্বোতভাবে ব্যাস্ত থাকে। এ অবস্থাতে বুয়েটের অত্যন্ত মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের খেলাধূলার সংবাদের প্রবল তেষ্টা মেটাতেই বুয়েট কতৃপক্ষের এ উদ্যোগ। এ বিষয়ে ছাত্র কল্যাণ পরিষদের বর্তমান হ্যাডমের সাথে কথা বলতে গেলে তিনি জানান, ‘দেখুন আমরা সবসময়ই চাই পুলাপাইন পড়াশুনার পেছনে মাথা কুটিয়া না মরিয়া যাতে বিনোদন লাভেও সচেষ্ট থাকে। এ কারণে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের তদারকিতে নিয়মিত মামা বাহিনীর মধ্যে শারীরিক কসরত আয়োজন করে থাকি। মেধা, মননশীলতা এবং কূটনামিতে আমরা বুয়েট শিক্ষকরা অদম্য। ছাত্রদের যখন যা আজাইরা দাবি থাকে, আমরা তা পূরণে সর্বদাই সচেষ্ট। সামনে ফুটবল বিশ্বকাপ আসতেসে, এছাড়াও পরীক্ষাও চলে আসছে, এমতাবস্থায় সুষ্ঠুভাবে খেলা দেখার জন্য পুলাপাইনকে উদ্বুদ্ধ করতেই এ প্রক্রিয়ার বাস্তবায়ন।’

এতোদিন ধরে হলে ওয়াই-ফাই সংযোগ দেওয়া হচ্ছে না কেন তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমলাতান্ত্রিক জটিলতা। সব অই ব্যাটা নির্লজ্জ ভিসির দোষ। বুঝেনই তো।’
ভিসির ক্ষমতাবিহীন এ অবস্থাতে তার প্রভাব কি করে থাকে তা জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, ‘আপনে আমাত্তে বেশি বুজেন?’

এরপর বুয়েটের মালিক, একচ্ছত্র অধিপতি, গেইম অফ থ্রোনসের রবার্ট ব্যারাথিওন এবং শেখের বেটির বেক্তিগত গৃহশিক্ষক বর্তমান উপাচার্যের কাছে এ ব্যাপারে অভিমত জানতে চাইলে তিনি কান্নাজড়িত কন্ঠে জানান, ‘দুই বছর ধরে ঢাল নাই ব্লেড নাই ভিসি সাইজা বইসা আছি। শেখের বেটিও আর ফুন্দিয়া খোজ খবর নেয় না। রাষ্ট্রপতিও পরলোকগম করেছেন, স্বপ্নেও দেখা দ্যান না। মাঝে দিয়ে শিক্ষামন্ত্রী মাঝে মধ্যে ফুন্দিয়া আমার সাথে তামশা করে, বলে দাদা দুঃখ বিনা সুখ লাভ হয় কি মহীতে। আরে ব্যাটা, দুঃখের তুই কি বুঝোস। চোরঞ্জিত ব্যাটা যখন ছিলো, তখন সে বুঝতো আমার দুঃখ। দপ্তরবিহীন মন্ত্রী আর ক্ষমতাবিহীন ভিসি, একে অপরের ভাই ভাই।’

পুনরায় তাকে ওয়াই-ফাই এর বিষয়ে স্মরণ করিয়ে দেওয়া হলে তিনি বলেন, ‘আমার সোনার বাংলার দুধের শিশুদের হাতে এই দায়িত্ব দেবার প্রস্তাব দিয়াছিলাম, উহারা গত দুই বছর ধরে অত্যন্ত সুন্দর ভাবে ইহার প্রস্তাব নিয়ে কাজকর্ম করতেসিলো। সব ঠিকঠাক থাকলে আগামী বছর দশেকের মধ্যে প্রস্তাব পাস করে মরবার আগে বুয়েটে ওয়াইফাই দেখে যেতে পারতাম। কিন্তু এই ব্যাটা জামাত শিবির শিক্ষকগোষ্ঠীরা উহারা নিজেদের হাতে নিয়া পুলাপাইনদের উচ্ছন্নে যাবার গতি করতেসে। আমি থাকলে উহাদিগকে সকাল বিকাল ভাষণ শুনাইতাম, বা-আ-লী এর সঙ্গীতকে থিম সং বানাইয়া ক্যাম্পাস মাতাইতাম। উনারা এসব কিছু করতে দিলেন না। সব জামাত শিবির গোষ্ঠীর ষড়যন্ত্র।’

সেপ্টেম্বর 26, 2012

বুয়েটের ছাত্রকল্যাণ পরিচালক হচ্ছেন সানি

বলিউডের ছবি জিসম ২ মুক্তি পাওয়ার পর পরই সানি লিওনকে বুয়েট নিয়ে আসার জন্য য়ে, বুয়েটের সাধারণ ছাত্রদের মাঝে  ব্যাপক উত্তেজনা তৈরী হয়। ছাত্ররা শুরু করেন লাগাতার আন্দোলন , এক পর্যায়ে ছাত্ররা রাস্তায় নেমে সানি লিওনের নামে  শ্লোগান দিতে শুরু করে, ক্রমঃশ পরিস্থিতিও উত্তপ্ত হতে শুরু করে।উত্তেজিত ছাত্রদের দাবী একসময় পরিণত হয় ভিসিবিরোধী আন্দোলনে।

এ উত্তেজনা তৈরীর কারণে বুয়েটের বর্তমান ভিসি আলুবেদককে জানান, “এখানকার ছাত্ররা বিকৃত ও বেয়াদপ, ভালো ছেলে হলে তারা হলে বসে দরজা বন্ধ করে সানি লিওনকে দেখতো। এখন তারা আমার চেয়ার নিয়ে টানাটানি শুরু করেছে।”

মামাবাহিনীর  কমার্স ডিপার্টমেন্টের এক  মামা এ প্রসঙ্গে আমাদেরকে জানান, “আমরা এ বিষয়ে সবার সাথে ঐক্যমত্য পোষণ করে আসছি! মামাবাহিনী কখনোই কঠোরতা প্রদর্শনে কার্পণ্য করে নি প্রয়োজনে আমরা আরো কঠোর হব, আপনারা পত্রিকার পাতায় আমাদের কঠোর রূপ দেখেছেন কিন্তু আমাদের কঠোরতা সম্পূর্ণরুপে প্রস্ফুটিত করতে চাইলে বুয়েটের ভিসি হিসেবে সানি লিওনকেই আসতে হবে।”

ছাত্রছাত্রীদের তীব্র দাবির মুখে অবশেষে ভিসি না চাইলেও প্রশাসন বাধ্য হয় ছাত্রদের দাবি অংশত হলেও মেনে নিতে। বুয়েট ভিসি পদত্যাগ না করলেও গুচ্ছ প্রস্তাবের একাংশ হিসেবে দাবি তোলা হয় ছাত্রকল্যাণ পর্ষদের বর্তমান কর্ণধারকে সরিয়ে দিয়ে সানি লিওনকে এই পদে যোগদান করাতে। অবশেষে এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। সানি লিওন যাতে অতি শিঘ্রই তার কার্যক্রম শুরু করতে পারেন, সে বিষয়ে অতি সত্বর ব্যাবস্থা নেওয়া হবে বলে প্রশাসন থেকে জানানো হয়।

এদিকে সানি লিওনকে এ প্রস্তাব সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, “আমি আসলে বলিউডে প্রশংসা কুড়ালেও আমার মন, দেহ সব কিছুই বুয়েটের জন্য। বুয়েটের ছাত্ররা প্রয়োজনে কঠোর হতে পারে তাই যে কোনো মূল্যে আমি বুয়েটে আসতে রাজি আছি।”

এ প্রসঙ্গে  উল্লেখযোগ্য যে, মুম্বাইতে সানি লিওন সম্প্রতি বাসা খুঁজে বেড়ালেও তাকে কেউ বাসা ভাড়া দিতে রাজি হচ্ছেন না! ।  প্রিয়জনদের সাথে প্রিয় মুহূর্ত কাটানোর জন্য তার নিজের একান্ত একটু স্থান দরকার। এই মুহূর্তে বুয়েটের এই প্রস্তাব গ্রহণে তাই এক মুহূর্তও দ্বিধা করেননি সানি লিওন।

তার এই সম্মতিতে আনন্দে আপ্লুত হয়ে বুয়েটের বর্তমান বড়ভাই ব্যাচ পূর্বপ্রস্তুতি হিসেবে ইতোমধ্যে প্রপোজ ডে পালন করেছে! সামনে তারা সানি লিওনের আগমন উপলক্ষে আরো বৃহৎ কর্মসূচী হাতে নিতে চায় বলে জানা যায়!

 

 

মে 1, 2012

বুয়েটের ভিসি হবার আশায় বার্সা ছেড়েছিঃ পেপ গার্দিওলা

আলু ডেস্কঃ

বার্সেলোনার সদ্য সাবেক হওয়া কোচ পেপ গার্দিওলা জানিয়েছেন কেবল মাত্র বুয়েটের ভিসি হবার সুবর্ণ সুযোগের হাতছানিতে তিনি বার্সা ছেড়েছেন। গতকাল সাংবাদিকদের সাথে এক ঘরোয়া আলোচনায় তিনি এই কথা জানান। বার্সেলোনাকে এই গ্রহ থেকে ভীন গ্রহের ফুটবল টিমে পরিণত করতে তার অবদানই সবচেয়ে বেশি বলে ফুটবল বোদ্ধাদের ধারনা।

তার কোচিং-এই সুন্দর ফুটবলের পসরা সাজায় বার্সা । বুয়েটের নতুন ভিসি খোজা হচ্ছে এই খবর পাবার পর পরই অতি দ্রুত বার্সেলোনার কোচের পদ থেকে ইস্তফা দেন পেপ। তিনি জানান বুয়েটকেও একট ভীন গ্রহের বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিনত করার স্বপ্ন দেখেন তিনি। পেপ গার্দিওলা আরো বলেন , বুয়েটের উপাচার্যের মত জব সিকিউরিটি আর কোন চাকরীতে নেই, এবং বর্তমানে এটিই সবচেয়ে সম্মানজনক চাকরী,  নিজের ছোটবেলার স্বপ্ন  বুয়েটের উপাচার্য হওয়া, সেই স্বপ্নের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে বার্সার এই দেবদূত। তিনি আশা প্রকাশ করেন বুয়েটের ভিসি হবার বিষয়ে তার সমর্থনে এগিয়ে আসবেন বার্সা প্রেমী হাজারো বুয়েটিয়ান।

এপ্রিল 29, 2012

বুয়েটকে বিলুপ্ত করে দেওয়ার দাবীতে স্মারকলিপি দিলেন শিক্ষার্থীরা

বুয়েট কে বিলুপ্ত করে দেওয়ার দাবী জানিয়ে প্রশাসনের কাছে স্মারকলিপি প্রদনা করেছেন বুয়েটের সাধারন শিক্ষার্থীরা। গতকাল বিকেলে প্রশাসনের কাছে সর্বস্তরের সাধারন ছাত্র-ছাত্রীদের পক্ষ থেকে এই স্মারকলিপি পেশ করা হয় । ছাত্র-ছাত্রীরা মনে করছেন বাংলাদেশে এই মুহুর্তে বুয়েটের কোন প্রয়োজন নেই, এটিকে এভাবে চালিয়ে রেখে সরকারের যে অর্থ ব্যয় হচ্ছে  তা দিয়ে বরং সব ছাত্র-ছাত্রীকেই খাওয়ানো পরানো সম্ভব।  এদিকে স্মারকলিপি প্রদানের পর ‘বুয়েট বিলুপ্তিকরণ আন্দোলন’ এর ব্যানারে একটি মানববন্ধন এবং সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয় । এখানে জানানো হয়  যে দেশে এখন যথেষ্ট পরিমাণে প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় আছে এছাড়াও আরো অনেক গুলো পাবলিক প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে উঠেছে, এ অবস্থায় বুয়েটিয়ানরা পাশ করে বেকার হয়ে বসে থাকে এবং দেশের কোন কাজেই আসে না।  আর একটা উল্লেখযোগ্য অংশ বিদেশে রপ্তানী হয়ে যায়, এভাবে মেধা পাচার ও মেধার অপচয় রোধ করতে বুয়েটকে বিলুপ্ত করার দাবী জানান তারা। এছাড়াও বুয়েটকে বিলুপ্ত করা হলে বর্তমান অচলাবস্থারও সমাধান হয়ে যাবে । “বুয়েট ই যদি না থাকে তাহলে বুয়েটের অচলাবস্থা থাকারও প্রশ্ন আসে না” -সংবাদ সম্মেলনে এই কথা বলা হয়।  বুয়েট বিলুপ্তিকরণ আন্দোলনের পক্ষ থেকে জানানো হয় বুয়েট কে বিলুপ্ত করা হলে বর্তমান প্রশাসন নিয়ে তাদের কোন বক্তব্য নেই তারা নিজেদের পদে বহাল থাকতে পারেন।   এদিকে ছাত্রদের এই দাবীকে বেশ গুরুত্বের সাথে দেখছেন সরকার, বুয়েটের পেছনে যে বিপুল পরিমাণ অর্থ অপচয় করা হয় তা কতটা যুক্তিযুক্ত এই নিয়ে তর্কাতর্কি চলছে নীতিনির্ধারকদের মাঝে।  বুয়েট বিলুপ্ত হলে সাধারন ছাত্র-ছাত্রীদের কোন আপত্তি নেই বলে জানা গেছে তবে তারা ক্রেডিট ট্রান্সফার করে উন্নত বিশ্বের কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়বার সুযোগ চায় । অতীতে দেশে দপ্তরবিহীন মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী দেখার সৌভাগ্য অর্জন করেছে দেশবাসী , বুয়েটকে বিলুপ্ত করা হলে প্রথমবারের মত বিশ্ববিদ্যালয়বিহীন প্রশাসন দেখবার সৌভাগ্য অর্জন করবে দেশের জনগন।

এপ্রিল 26, 2012

পাওলি দামকে প্রো-ভিসি করার দাবীতে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ শুরু

আলু ডেস্কঃ

পাওলি দাম কে বুয়েটের উপ-উপাচার্য করার দাবীতে গণস্বাক্ষর অভিযান শুরু করলেন বুয়েট মামাবাহিনীর সদস্যরা।  বুয়েটের ভাল মন্দের দেখাভাল করা, নিঃস্বার্থ সেনাপতিরা এবার এগিয়ে এসেছেন পাওলি দামকে বুয়েটের রানী করে সিংহাসনে বসাবার দাবী নিয়ে।  উল্লেখ্য বুয়েটের সবচেয়ে নিয়মিত ও মেধাবী ছাত্রদের দিয়েই মামাবাহিনী গঠিত হয়, এই বাহিনীর বেশিরভাগ সদস্যেরই ক্লাশে উপস্থিতির হার ৯০% এর বেশি বলে জানা যায়। দীর্ঘদিন ক্লাশ করতে না পেরে ইনাদের অনেকেরই নানা ধরনের শারিরীক ও মানসিক সমস্যা হচ্ছে। অন্যদিকে সাধারন ছাত্র-ছাত্রীদের স্বার্থে ও তারা নিবেদিত প্রাণ, কাজেই দ্রুত ক্লাশ শুরুর জন্য তারা চলমান জট নিরসনে মাঠে নামতে বাধ্য হচ্ছেন।

মামাবাহিনীর মতে বুয়েট কে বাঁচাতে এখন পাওলি ফর্মুলাই একমাত্র ট্রাম্প কার্ড। এই লক্ষ্যে আজ থেকে সব ছাত্র-ছাত্রীদের স্বাক্ষর সংগ্রহ করা শুরু করেছেন তারা।  এদিকে কোন শিক্ষার্থী যদি স্বাক্ষর করতে অনিচ্ছুক হয় তাহলে তার স্বাক্ষর ও নিজ উদ্যোগে করে দেবার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন মামারা । এদিকে এই উদ্যোগ কে সাধুবাদ জানিয়েছেন বুয়েটের সাধারন শিক্ষার্থীরা।  নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ছাত্র বলেন, “বুয়েটে তো অনেকদিন রাজার রাজত্ব দেখলাম এবার একজন রানী আসলে মন্দ হয় না” । এদিকে এই মহতি উদ্যোগে শামিল হতে এগিয়ে এসেছেন মামাবাহিনীর ছাত্র শিবির শাখা, আগামীকাল তাদের উদ্যোগে বুয়েট কেন্দ্রীয় অডিটোরিয়ামে পাওলি দাম অভিনিত ছবি ‘ছত্রাক’ ও ‘হেট স্টোরি’ -র বিশেষ কিছু দৃশ্য বিনা টিকিটে  শুধুমাত্র স্বাক্ষরের বিনিময়ে প্রদর্শন করা হবে বলে জানা গেছে।

এপ্রিল 24, 2012

নিখোঁজ হলেন পূণম পান্ডে

নিজস্ব আলুবেদকঃ

বুয়েটের নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করার কিছুদিন পরেই  নিখোঁজ হলেন পূণম পান্ডে। গতকাল দুপুরে নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজ হন পূণম । পূণমের নিখোঁজ হবার ঘটনায় বাংলাদেশ পুলিশের সাহায্য চেয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার । পূণম কিভাবে নিজ বাসা থেকে নিখোঁজ হলেন তা কেউ বলতে পারছেননা। পরিবারের অভিযোগ গুম করা হয়েছে পূণম। গুম করার স্টাইলে বাংলাদেশের ছোঁয়া থাকায় বিষয়টি তদন্তের জন্য বাংলাদেশ পুলিশ এবং সাংবাদিকদের সাহায্য কামনা করেছেন পূণমের পরিবার।

গুম হলেন পূণম

এদিকে পূণম নিখোঁজ হবার ঘন্টাখানেকের মধ্যেই বুয়েটে পৃথক পৃথক সম্মেলন করেছে মামাবাহিনী ও বুয়েট প্রশাসন। উভয়পক্ষ থেকেই জানানো হয় পুণমের গুম হবার বিষয়টি শিক্ষক সমিতির ষড়যন্ত্র, বুয়েট যেন খুলতে না পারে সেই জন্যেই পুণম কে গুম করা হয়েছে । শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পূণম গুম হওয়ার কারনে লাগাতার আন্দোলনে যাওয়ার চিন্তা ভাবনা করছেন বুয়েটের ছাত্ররা। পূণম না খুলেই নিখোঁজ হবেন এটা মেনে নিতে পারছেননা কেউই। উল্লেখ্য গত সপ্তাহে এক সংবাদ সম্মেলনে পুনম ঘোষনা দেন যে বুয়েট খুললে তিনিও খুলবেন।

এপ্রিল 23, 2012

বুয়েটকে ঢেলে সাজানোর নির্দেশ দিল শিক্ষা মন্ত্রনালয়

আলু ডেস্কঃ
বুয়েটের মান ক্রমশ নিচের দিকে নেমে যাওয়ায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিকে ঢেলে সাজানোর নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রাথমিক ব্যবস্থা হিসেবে বর্তমান প্রশাসনের বাইরের সকল শিক্ষকে চাকরী থেকে অব্যাহতি নেওয়ার প্রস্তাব রাখা হয়েছে। মন্ত্রনালয় থেকে জানানো হয় শিক্ষকদের যদি বর্তমান প্রশাসনের সাথে কাজ করতে এতোই অসুবিধা থাকে তাহলে তারা পদত্যাগ করুন, বুয়েটে আমরা নতুন শিক্ষক নিয়োগ দেব, বাংলাদেশ মামাবাহিনীর অনেকেই প্রয়োজনে বিনা বেতনে বুয়েটে পড়াতে রাজি হবেন। এসময় পলাশীর আলুর সাংবাদিক বুয়েটের তৃতীয় শ্রেণীর নাগরিক সাধারন ছাত্র ছাত্রীদের সমস্যার বিষয়গুলো শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তার কাছে তুলে ধরেন, জানানো হয় যে যেসব শিক্ষার্থীর বর্তমান প্রশাসনকে পছন্দ নয় তারা চাইলে বুয়েট থেকে টিসি নিতে পারবেন অথবা ক্রেডিট ট্রান্সফার করে রুয়েট,চুয়েট,কুয়েট,ডুয়েট বা যেকোন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে চলে যেতে পারবেন।  শিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে বলা হয় “বুয়েটে এখন অনেক জঞ্জাল এই সব জঞ্জালকে দূর করবার জন্যেই আমাদের এ উদ্যোগ ।” এদিকে কয়েকশ শিক্ষক এবং হাজার হাজার ছাত্রকে বদলি না করে প্রশাসনের দু একজনকে সরানোটা তুলনামূলক ভাবে সহজ হতো কিনা এ প্রশ্ন করা হলে জানানো হয় “বর্তমান সরকার সহজ কাজ পছন্দ করেন না , তা্রা সহজ কাজটিও কঠিন ভাবে করতে ভালবাসেন কারন দুনিয়াটাই এখন কঠিনের ভক্ত “।

এপ্রিল 22, 2012

মামা বাহিনীর সাথে নতুন চুক্তি করলেন সংবাদ ও ভোরের কাগজ

বুয়েট আলুবেদকঃ
নিজেদের আরও আধুনিক করে তুলতে বুয়েট মামা বাহিনী নতুন চুক্তিতে আবদ্ধ হলেন দেশের দুই শীর্ষ  স্থানীয় পত্রিকা সংবাদ এবং ভোরের কাগজের সাথে। এই চুক্তি অনুসারে মামাবাহিনীর যাবতীয় অ্যাকশন পোশাক সরবরাহ করবেন ভোরের কাগজ পত্রিকা এবং যাবতীয় সরঞ্জাম সরবরাহ করবেন সংবাদ পত্রিকা। মহাসমারোহে হরতালের মধ্যে প্রো-ভিসির অফিসের সামনে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে এই চুক্তি সম্পাদিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় উপাচার্য এবং উপ- উপাচার্য। এই অনুষ্ঠানে তাদের নতুন কিটের মোড়ক উন্মোচন করেন মাননীয় উপাচার্য।
 
Image
এখন থেকে তাদের দেখা যাবে নতুন এ আদলে। এ সম্পর্কে মামা বাহিনীর এসিসটেন্ট চীফ বলেন, “এই পোষাকে আমরা আরও অ্যাকশন ধর্মী হয়ে উঠবো এবং দেশসেবায় নিজেদের নিয়োজিত রাখিতে পারিব। তাছাড়া ইহাতে ছিদ্র থাকায় গরমের মধ্যে মানব বন্ধন করতেও আমাদের সুবিধা হবে। ” একই অনুষ্ঠানে মোড়ক উন্মোচিত হয় মামাবাহিনীর  নমুনা সরঞ্জামের। এর মোড়ক উন্মোচক করেন মাননীয় উপ-উপাচার্য।
 
Image
এই বিষয়ে মামা বাহিনীর চিফ বলেন, “ এতদিন আমরা জং ধরা যেসব সরঞ্জাম ব্যবহার করতাম তা দিয়ে সজোরে আঘাত করা গেলেও প্রভাব ১ মাসের বেশি থাকত না। এই যন্ত্রগুলো বেশ শক্তিশালী। এর আঘাত বেশ দীর্ঘস্থায়ী হবে বলে আশা রাখি”।
অনুষ্ঠান শেষে এক মিলাদ মাহফিল এর আয়োজন করা হয়। সেখানে পুনম পাণ্ডে এবং বুয়েট দুটোই তাড়াতাড়ি খোলার জন্য দোয়া করা হয়।
এপ্রিল 20, 2012

বুয়েট প্রশাসনকে পাকিস্তান পাঠাতে পারে বিসিবি

ক্রীড়া ডেস্কঃ

এক দিন আগেই খবর এসেছিল, পাকিস্তানের ক্রিকেটাঙ্গনে বয়ে যাচ্ছে আনন্দের বন্যা। কাল এল হতাশার খবর। বাংলাদেশের সফর ঘিরে অনেক স্বপ্ন ছিল পিসিবির। পিসিবি কর্তাদের বিশ্বাস ছিল, বাংলাদেশ পাকিস্তান সফরে গেলে অন্যান্য দেশও সফরে উৎসাহী হবে। কিন্তু হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞায় সফর বাতিল হওয়ায় যারপরনাই হতাশ পাকিস্তান । তবে তাদের এ হতাশা কাটাতে যথাসাধ্য চেষ্টা করে চলছে সাবেক পূর্ব পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড  অর্থাৎ বিসিবি । এখন বুয়েট বন্ধ থাকায় বুয়েট প্রশাসনকে একটি প্রীতি সফর খেলতে পাকিস্তান পাঠানোর কথা ভাবছে বিসিবি। বিসিবির মিডিয়া কর্মকর্তা জানান  পাকিস্তান চাচ্ছে যেভাবেই হোক একটা সফর যেন হয় কারন তারা মাঠ, পিচ ,হোটেল, টিকিট সবকিছুই ঠিক করে ফেলেছেন। বাংলাদেশ দল যেহেতু আইনি জটিলতার কারনে যেতে পারবেনা এই অবস্থায় তাদের বদলে বুয়েট প্রশাসন থেকে ১৪ জনের একটি দল গঠন করে পাকিস্তান পাঠানো যেতে পারে । বিসিবি কর্মকর্তা বলেন পাকিস্তান এখন যেকোন টিম পেলেই খেলবে , আর বুয়েট প্রশাসন তো পাকা খেলোয়ার আশা রাখি তারা জয় নিয়েই দেশে ফিরতে পারবে। নিরাপত্তার বিষয়ে বুয়েট প্রশাসন আপোস করবেন কিনা এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে বিসিবির পক্ষ থেকে জানানো হয় নিরাপত্তার জন্য বুয়েট প্রশাসন চাইলে মামাবাহিনীকে সাথে নিতে পারবেন । বিসিবি আশা করছে এই উদ্যোগের ফলে পিসিবির বুকে যে রাজ্যের হতাশা ভর করেছে তা কিছুটা হলেও দূর হবে। এই বিষয়ে বিসিবি সভাপতি লোটাস কামালের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি আলুবেদককে বলেন – “আমার ধারনা বুয়েট প্রশাসন পাকিস্তান যেতে রাজি হবেন , কারন মেধাবী হবার এত সুবর্ণ সুযোগ তাদের জীবনে সহজে আসবেনা ।”

 

Follow

Get every new post delivered to your Inbox.

%d bloggers like this: